×
  • আপডেট টাইম : 28/04/2018 06:02 AM
  • 48 বার পঠিত
নিজস্ব প্রতিনিধি:-  দেশে এসে মামলা মোকাবেলা করে রাজনীতি করার মতো সাহস তারেক রহমানের নেই বলে মনে করেও ওবায়দুল কাদের। বলেন, বিএনপিও চায় না তাদের নেতা দেশে ফিরে আসুক। শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধুর মেজ ছেলে শেখ জামালের ৬৪তম জন্মবার্ষিকীতে বনানী কবরস্থানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন কাদের। ১৯৫৪ সালের আজকের দিনে জন্ম হওয়া শেখ জামাল ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার দিন নিহত হন। তাকে মা, ভাইদের সঙ্গে বনানী করবস্থানে সমাহিত করা হয়। সাংবাদিকরা এ সময় কাদেরের কাছে যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক আশ্রয়ে থাকা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানকে নিয়ে জানতে চান। জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি চায় না জেল জুলুম মোকাবেলা করে দেশে ফিরে তারেক রহমান রাজনীতি করুক। তারেক রহমানেরও সে সাহস নেই।’ ২০০৭ সালে গ্রেপ্তারের পরের বছর প্যারোলে মুক্তি পেয়ে যুক্তরাজ্যে চিকিৎসার জন্য যান তারেক রহমান। কথা ছিল, তিনি দেশে ফিরে এসে আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন। কিন্তু তিনি আসেননি আর সম্প্রতি ফাঁস হয়েছে তিনি চার বছর আগেই যুক্তরাজ্য সরকারের কাছে পাসপোর্ট জমা দিয়ে সে দেশে রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়েছেন। বিএনপি ২৩ এপ্রিল এই বিষয়টি অস্বীকার করলেও ওই রাতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জমা দেয়া পাসপোর্টের নথিপত্র দেখালে পরদিন বিএনপি তা স্বীকার করে। এর মধ্যে বিদেশে অর্থপাচারের এক মামলায় তার সাত বছরের কারাদণ্ড এবং ২০ কোটি টাকা জরিমানা হয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির যে মামলায় মা খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদণ্ড এবং দুই কোটি টাকা জরিমানা হয়েছে, সেই মামলায় তারেকের সমপরিমাণ জরিমানা ও ১০ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে। আর খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকে তারেক রহমানই বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন হন। তবে বিএনপির জন্য বড় বিপদের কারণ হতে পারে ২০০৪ সালের ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা মামলা। চলতি বছরই এই মামলার রায় ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে, যেখানে তারেকের মৃত্যুদণ্ড চেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। এ ছাড়াও দুর্নীতি, ইতিহাস বিকৃতি, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি এবং মানহানির বহু মামলা রয়েছে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে। সরকার তারেক রহমানকে দেশে ফেরাতে যুক্তরাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছেন, দুই দেশের মধ্যে বন্দি বিনিময় চুক্তি না থাকলেও অন্য একটি আইনে তারেককে ফেরানোর চেষ্টা চলছে এবং যুক্তরাজ্য সরকার এতে আগ্রহ দেখিয়েছে। তবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন দাবি করেছেন, তারেক রহমানকে চাইলেই দেশে ফিরিয়ে আনতে পারবে না সরকার। তারেক রহমান ছাড়াও তার মা সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে দিতে বিএনপির দাবি নিয়ে কথা বলেন কাদের। বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি পাওয়ার বিষয়েও সরকারের কিছু করণীয় নেই। তাকে মুক্তি দেয়া না দেয়া আদালতের বিষয়।’ আগামী জাতীয় নির্বাচনে খালেদা জিয়ার অংশগ্রহণের প্রশ্নে কাদের বলেন, এখানেও অংশগ্রহণ নিয়ে সরকারের কিছুই করার নেই। সব ঠিক হবে আদালতের নির্দেশ। এর আগে ওবায়দুল কাদের শেখ জামালর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানান আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে। এরপর যুবলীগ, যুব মহিলা লীগ, ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বঙ্গবন্ধু পুত্রকে। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী,দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

ফেসবুকে আমরা...